কম্পিউটার থেকে মোবাইলে ফাইল আদান প্রদানের জন্য সেরা কিছু মাধ্যম।

0
25

হ্যালো বন্ধুরা, আজকে আমি আলোচনা করব কম্পিউটার থেকে মোবাইলে ডাটা বা ফাইল আদান প্রদানের বিভিন্ন মাধ্যম। বাংলাদেশের লোকেরা সাধারণত কম্পিউটার থেকে মোবাইলে বা মেমোরি কার্ডে ডাটা আদান-প্রদানের জন্য কার্ড রিডার অথবা ডাটা ক্যাবল ব্যবহার করে থাকি। বাটন ফোন থেকে ডাটা কেবল দিয়ে ডাটা আদান প্রদানের সময় স্পিড খুবই স্লো হয়। এই জন্য তখন আমরা কার্ড রিডার ইউজ করি। আর বর্তমান যুগের সমস্ত স্মার্টফোনই আমরা কম্পিউটারের সাথে ডাটা কেবল দিয়ে কানেক্ট করে ডাটা আদান-প্রদান করে থাকি।

কিন্তু অনেক সময় একটা সমস্যা দেখা যায় যে ডাটা কেবল পাওয়া যাচ্ছে না অথবা সঠিক ভাবে কানেক্ট হচ্ছে না অথবা আপনার মোবাইলটি টাইপ সি পোর্ট বিশিষ্ট কিন্তু টাইপ সি পোর্ট এর কোন ডাটা কেবল নেই। এরকম আরো অনেক সমস্যার সমাধান হল wireless ডাটা ট্রান্সমিশন অর্থাৎ কোন তার ব্যবহার না করেই কম্পিউটার থেকে মোবাইলে এবং মোবাইল থেকে কম্পিউটারে ডাটা আদান-প্রদান করা। আমি আজ আপনাদের বলব 2 টি উপায়, যে দুটি উপায়ে আপনারা কম্পিউটার থেকে মোবাইলে এবং মোবাইল থেকে কম্পিউটারে ডাটা আদান-প্রদান করতে পারবেন তারবিহীন ভাবে। সকল প্রকার ফাইল ট্রান্সফার করা যাবে।

1.Share it

সর্বপ্রথম এবং সবচেয়ে পপুলার পদ্ধতিটি হলো শেয়ারইট। শেয়ারইট দিয়ে ডাটা আদান-প্রদান করতে গেলে ফোনে এবং কম্পিউটারে শেয়ারইট এপ্লিকেশনটি ইন্সটল থাকতে হবে। ফোনে ইন্সটল থাকতে হবে শেয়ারইট অ্যাপ এবং কম্পিউটারে ইন্সটল থাকতে হবে শেয়ারইট এর ডেক্সটপ ভার্শন। আপনার যদি ল্যাপটপ হয় তাহলে কোন সমস্যা নেই কিন্তু যদি আপনার কম্পিউটার অর্থাৎ এ ডেক্সটপ হয় তাহলে আপনি খেয়াল রাখবেন যে আপনার কম্পিউটারে অন্ততপক্ষে রাউটার এবং ওয়াইফাই কানেক্টেড ডিভাইস এর যেকোনো একটি আছে। হয় আপনার কম্পিউটারে রাউটার হবে অথবা ওয়াইফাই কানেকশন ডিভাইস থাকতে হবে, তারপর ফোন থেকে শেয়ারইট অ্যাপ এ কানেক্ট পিসি অপশনে ক্লিক করতে হবে। তারপর সবচেয়ে সহজ উপায় হল কম্পিউটার থেকে কিউআর কোড স্ক্যান করতে হবে মোবাইল দিয়ে। তা হলে সাথে সাথেই আপনি কানেক্ট করে যাবেন এবং তারপর আপনি অনায়াসে যেকোন ফাইল ফোল্ডার এবং সমস্ত রকমের ডাটা ট্রান্সফার করতে পারবেন নিজেদের মধ্যেই, কোনরকম তার দিয়ে সংযুক্ত করা ব্যতীত।

2. File share FTP

দ্বিতীয়টি হলো File share FTP নামক একটি এন্ড্রয়েড এপ্লিকেশন আমি ব্যক্তিগতভাবে এইটাকে ব্যবহার করি কারন এইটা ব্যবহার করার জন্য শুধু ফোনে একটি থাকলেই যথেষ্ট কম্পিউটারে কোন এপ্লিকেশন থাকা লাগবে না তো এর জন্য হয় নাকে ফোন থেকে হটস্পট দিয়ে কম্পিউটারে কানেক্ট করতে হবে অথবা কম্পিউটার থেকে হটস্পট দিয়ে ফোনে কানেক্ট করতে হবে অথবা বোন এবং কম্পিউটার দুটোই একটি নির্দিষ্ট নেটওয়ার্কে কানেক্ট থাকতে হবে যেমন ধরুন আপনার বাসার রাউটার এর সাথে আপনার ফোন এবং কম্পিউটার দুটোই অনেক থাকবে তারপর আপনি ওই অ্যাপটিতে যাবেন আপনার ফোন দিয়ে এবং তারপর এফটিপি এনাবেল করে দিবেন আপনি চাইলে পাসওয়ার্ড সেট করতে পারবেন আপনার প্রাইভেসির জন্য অথবা নাও করতে পারেন তারপর আপনি দেখবেন অ্যাপটি নিচের দিকে একটা আইপি এড্রেস দেওয়া আছে আপনি কম্পিউটার থেকে ক্রোম ব্রাউজার অথবা যেকোনো ব্রাউজার ওপেন করবেন তারপর সেই আইপি এড্রেস টা হুবহু লিখবেন এড্রেসবারে তারপর এন্টার ক্লিক করবেন দেখবেন আপনি আপনার ফোনের স্টোরেজের অ্যাক্সেস করতে পারছেন তারপর আপনি আপনার ফোনের মেমোরি থেকে যেকোন ফাইল ফোল্ডার আপনার কম্পিউটারে কপি করে নিতে পারেন অথবা কম্পিউটারে কোন ফাইল ফোল্ডার আপনার ফোনের মেমোরি টা দিয়ে দিতে পারেন শুধুমাত্র ওয়েব ব্রাউজার টি ইউজ করি এটা খুবই সহজ কারণ কম্পিউটারে আলাদা করে কোন সফটওয়্যার ইনস্টল করা লাগে না তো আশা করি আজকের ভিডিও থেকে কিছু শিখতে পারছেন যদি থাকেন তাহলে কমেন্ট করে জানাবেন আর কিছু বুঝতে না পারলেও কমেন্ট করে জানাবেন ধন্যবাদ ধন্যবাদ 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here